চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রীকে শ্লীলতাহানির চেষ্টা, অটোরিকশা চালক আটক

মাহফুজ মল্লিক
আপডেটঃ জুলাই ২৪, ২০২০ | ৪:৪০
মাহফুজ মল্লিক
আপডেটঃ জুলাই ২৪, ২০২০ | ৪:৪০
Link Copied!

মতলব দক্ষিণ উপজেলার মধ্য নওগাঁও গ্রম এলাকায় গত বৃহস্পতিবার(২৩ জুলাই) বিকাল সাড়ে চারটায় চতুর্থ শ্রেণির এক ছাত্রীকে (৮) শ্লীলতাহানির ঘটনায় মো. রাসেল মজুমদার নামের এক অটোরিক্সা চালককে আটক করা হয়েছে।

সে উপাদী উত্তর গ্রামের রুহুল আমিন মজুমদারের ছেলে।এ ঘটনায় ছাত্রীটির খালা বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার রাতে মতলব দক্ষিণ থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। সেই মামলায় তাকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়। পরে তাঁকে কারাগারে পাঠানো হয়।

মেয়েটি মধ্য নওগাঁও গ্রামে খালার বাড়িতে থাকে। মধ্য নওগাঁও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রী সে।

বিজ্ঞাপন

পুলিশ ও এলাকাবাসীসূত্রে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার বিকেলে একটি বিকাশের দোকান থেকে টাকা উত্তোলনের জন্য শিশুটিকে নিয়ে তার খালা স্থানীয় নওগাঁও বাজারে আসেন। সেখান থেকে টাকা উঠানোর পর কিছু টাকা দিয়ে শিশুটিকে বাড়িতে যাওয়ার কথা বলেন তার খালা।রওনা দেওয়ার পর অটোরিকশাচালক শিশুটির পথরোধ করেন। এরপর খালার বাড়িতে পৌঁছে দেওয়ার কথা বলে তাঁর গাড়িতে উঠানো হয় শিশুটিকে। খালার বাড়ির কাছে পৌঁছানোর পরও সেখানে না নামিয়ে কৌশলে সেখানকার একটি নির্জন বাগানে শিশুটিকে নিয়ে যান অটোচালক। এরপর সেখানে তাকে যৌন নিপীড়ন করেন। একপর্যায়ে শিশুটি বুদ্ধি খাটিয়ে সেখান থেকে পালিয়ে খালার বাড়িতে চলে আসে এবং ঘটনাটি মামা ও খালাকে জানায়। বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে আটটায় পুলিশকে ঘটনাটি জানান শিশুর খালা। কিছুক্ষণ পর তার খালা বাদী হয়ে অটোরিকশাচালকের বিরুদ্ধে থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন। বৃহস্পতিবার রাত ১০টায় অভিযান চালিয়ে অটোরিকশাচালককে গ্রেপ্তার করা হয়।

মতলব দক্ষিণ থানার ওসি স্বপন কুমার আইচ জানান, এটি একটি ঘৃন্য অপরাধ। আসামিকে গ্রেপ্তার করে আদালতের মাধ্যমে চাঁদপুর কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:

ট্যাগ: