কচুয়ায় চেয়ারম্যান ও মেম্বারদের পাল্টাপাল্টি অভিযোগ

কচুয়া সংবাদদাতা
আপডেটঃ আগস্ট ২৫, ২০২০ | ১২:০৮
কচুয়া সংবাদদাতা
আপডেটঃ আগস্ট ২৫, ২০২০ | ১২:০৮
Link Copied!

কচুয়ার ৭নং সদর (দক্ষিন) ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো.জসিম উদ্দিন লিটনের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ এনে ইউপি সদস্য’রা অনাস্থা দিয়েছেন। ২৩ আগস্ট রোববার চাঁদপুর জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে জমা দিয়েছেন। এছাড়াও কচুয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা’র কার্যালয়ে অনুলিপি জমা দিয়েছেন।

পরিষদের ১১ জন ইউপি সদস্যের মধ্যে লিখিত ভাবে ৯ জন ইউপি সদস্য লিখিত ভাবে দাবি করেন, ইউপি চেয়ারম্যান মো. জসিম উদ্দিন লিটন শপথ গ্রহনের পর থেকে তাঁর নিজ খেয়াল খুশি মত ইউনিয়নের সকল কাজ পরিচলনা করে যাচ্ছেন।

কোনো প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য নিয়মিত মিটিং করার নিয়ম থাকলে তিনি তা করেননি। দীর্ঘ ৪৯ মাসের স্থাবর সম্পত্তির বিপরীতে ১% বরাদ্ধ পরিষদে জমা দেয়া হলেও ইউপি চেয়ারম্যান জসিম উদ্দিন লিটন ভূয়া প্রকল্প দেখিয়ে অর্থ আত্মসাৎ করেছেন।অভিযোগে স্বাক্ষরিত ইউপি সদস্যরা হলেন, মো. শাহজাহান, মো. মানিক,আব্দুল খালেক, আসাদুজ্জামান মুন্সী রাসেল, মোহাম্মদ বিল্লাল হোসেন, শরীফুল ইসলাম মানিক, মো.মনির হোসেন, নাজমুল হাসান ও মো.হাসানাত ।

বিজ্ঞাপন

এ ব্যাপারে অভিয়ুক্ত ইউপি চেয়ারম্যান মো. জসিম উদ্দিন লিটন তার বিরুদ্ধে ইউপি সদস্যদের আনীত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, মেম্বারদের অযুক্তিক প্রস্তাব ও অধিক সুবিদা না দেয়ায় তারা আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছে। তাছাড়া আমি কোন প্রকল্পের সভাপতি না। তাহলে কিভাবে অর্থ আত্মসাৎ করবো।তিনি আরো বলেন,ইউপি সদস’রা বৃহস্পতিবার সচিবকে জিম্মি করে আমার পরিষদের জায়গার দলিল ও প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ২ জন ইউপি সদস্য মো. বিল্লাল হোসেন ও নাজমুল হাসানের নেতৃত্বে মেম্বাররা নিয়ে গেছে। এ ব্যাপারে আমি গতকাল রবিবার কচুয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা’র কার্যালয়ে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছি।

 

বিজ্ঞাপন

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:

ট্যাগ: