সেই আছমাকে ৫০ হাজার টাকা দিলেন আনিছুর রহমান মজুমদার

মনিরুজ্জামান বাবলু
আপডেটঃ সেপ্টেম্বর ৬, ২০২০ | ১১:১৪
মনিরুজ্জামান বাবলু
আপডেটঃ সেপ্টেম্বর ৬, ২০২০ | ১১:১৪
Link Copied!
সেই আছমা পেলেন ৫০ হাজার টাকা। কৃত্রিম পায়ের জন্য মানবিক সেবায় এগিয়ে আসলেন কালচোঁ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক  আনিছুর রহমান মজুমদার।
জন্ম থেকে ১৭ বছর বয়সী কলেজ ছাত্রী আছমা আক্তার এখনও দুই পায়ে হাঁটতে পারেনি । ১১ মাস বয়সে চুলার আগুনে পুড়ে যায় ডান পা। ১৪ বছর বয়সে ধরা পড়ে ক্যান্সার। ২০১৭ সালের পর আছমার স্বপ্ন কৃত্রিম পা লাগিয়ে স্বাভাবিকভাবে হাঁটবে। পপুলার বিডিনিউজ ডটকমে আছমাকে নিয়ে একটি মানবিক প্রতিবেদন প্রকাশের পর অনেকেই আছমার বাবার সাথে যোগাযোগ করেন।
তাঁদের মধ্যে একজন হাজীগঞ্জ উপেজেলার ৪নং কালচোঁ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও রামপুর উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সভাপতি আনিছুর রহমান মজুমদার। তিনি পপুলার বিডিনিউজ ডটকমের একটি লাইভ অনুষ্ঠানে ৫০ হাজার টাকা দেয়ার ঘোষণা দেন। সেই প্রতিশ্রুতি মতে শনিবার সকালে আছমার বাড়ীতে গিয়ে নগদ ৫০ হাজার টাকা তুলে দেন।
ওইসময় আছমার মা-বাবা ও ইউনিয়েন আওয়ামীলীগের সভাপতি আকতার হোসেন মিকন, আওয়ামীলীগ নেতা আলী আকবর, হাজীগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সহ সম্পাদাক কাজী ইসমাইল শুভ, ৪নং কালচোঁ ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক আহবায়ক তামিম মিয়াজি , স্কাউট প্রতিনিধি রাকিবুল হাসান, ইউনিয়ন ছাত্র নেতা রুবেল হোসেন জিহাদ উপস্থিত ছিলেন।
দীর্ঘ ১৭ বছর ধরে এক পা নিয়ে জীবনযুদ্ধে কলেজ ছাত্রী আছমা। ২০১৭ সালে ধরা পড়ে ক্যান্সার। তারপর ক্যান্সার চিকিৎসার দায়িত্ব নিলেন আছমার প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৎকালীন প্রধান শিক্ষক কাজী মোতাহেরুল হক ও শিক্ষিকা নাসিমা আক্তার। আছমার গ্রামের বাড়ী হাজীগঞ্জ উপজেলার ৪ নং কলেচোঁ দক্ষিণ ইউনিয়নের রামপুর। তার বাবা মজুমদার বাড়ীর কফিল উদ্দিন। আছমা সবার ছোট, দেখছেন বড় স্বপ্ন।
আছমাকে সহযোগিতা করতে যোগাযোগ করতে পারেন, তার বাবার মুঠোফোন নম্বরটি হলো -০১৮৬৫ ৪১৫২২৫।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:

ট্যাগ: